New Rules for Railway Ticketing: জাতীয় পরিচয়পত্র ছাড়া ট্রেনের টিকেট কেনা যাবে না

0
561

রেলওয়ে টিকিট কাটার নতুন নিয়ম | জাতীয় পরিচয়পত্র ছাড়া ট্রেনের টিকেট কেনা যাবে না New rules for railway ticketing

রেল ভ্রমণের জন্য টিকেট কাটার নতুন পদ্ধতি চালু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। নতুন নিয়মে জাতীয় পরিচয়পত্র ছাড়া টিকেট কেনা যাবে না। ফলে জাতীয় পরিচয়পত্রের মাধ্যমে পরিচিতি নিশ্চিত করা না গেলে আর রেল-ভ্রমণ করা যাবে না। সোমবার ২৭শে জুলাই এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব অনুমোদন করেছে রেলওয়ে মন্ত্রণালয়। অক্টোবরের শেষ নাগাদ নতুন এ নিয়ম চালু হবে বলে জানিয়েছেন রেলওয়ে মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ মাহবুব কবীর।

টিকেট কাটা

রেলওয়ে বলছে, টিকেট কালোবাজারি বন্ধ এবং ভ্রমণের সময় যাত্রীর পরিচয় নিশ্চিত করার জন্য এ উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। নতুন পরিকল্পনায় একজন যাত্রীকে রেলওয়ের ওয়েবসাইটে নিজের ন্যাশনাল আইডি কার্ড অর্থাৎ জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। তার ফলে একজন ব্যক্তি রেজিস্ট্রেশন করার সাথে সাথে তার ছবি এবং পরিচিতি যেটা জাতীয় পরিচয়পত্র সার্ভারে দেয়া আছে, সেটা রেলের সার্ভারে চলে আসবে।

রেলওয়ের টিকেট কাটার অ্যাপসে বা অনলাইনে যারা আগে থেকে রেজিস্ট্রেশন করেছেন তারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে নতুন ব্যবস্থায় যুক্ত হয়ে যাবেন। তাদের নতুন করে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে না।

“নতুন নিয়মে একজন যাত্রী তার রেজিস্ট্রেশন করা আইডি থেকে নিজের নামে বা পরিবার বা বন্ধু অর্থাৎ যারা তার ভ্রমণসঙ্গী হবেন – তাদের নামে চারটি পর্যন্ত টিকেট কাটতে পারবেন।

যাত্রাকালে ট্রেনে চেকার তার কাছে থাকা স্মার্টফোন বা ট্যাবে রেলের সার্ভারে থাকা যাত্রীর নাম-পরিচয়ের সঙ্গে টিকেটে থাকা নাম-পরিচয় মিলিয়ে দেখবেন, অর্থাৎ যার নামে টিকেট তাকে ভ্রমণ করতে হবে, এবং যাত্রাকালে ‘অন বোর্ড’ নিজের পরিচয় নিশ্চিত করতে হবে।” এতে যাত্রীর স্মার্টফোন থাকার প্রয়োজন নেই, কিংবা তাকে জাতীয় পরিচয়পত্রও বহন করতে হবে না।

অনলাইন রিফান্ড

অগাস্টের মাঝামাঝি চালু হবে নতুন এ ব্যবস্থা। এর ফলে একজন যাত্রী অনলাইনে টিকেট কাটার পর যদি সেটি পরিবর্তন করেন বা যাত্রা বাতিল করতে চান, তাহলে তিনি টিকেট ফেরত দিয়ে অনলাইনেই অর্থ ফেরত পাবেন।

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কেনার নতুন নিয়ম:

বাংলাদেশ রেলওয়ের (Bangladesh Railway) সকল ট্রেনের সময়সূচি, রেলওয়ের সফটওয়্যার আপডেটের মাধ্যমে সিট প্ল্যান দেখে টিকেট বুকিং ও কেনার সুবিধা যোগ করা হয়েছে। অনলাইনে টিকেট কাটলে কোথায় সিট পাওয়া যাচ্ছে, তা জানার উপায় ছিল না।
ভ্রমণ তারিখের ১০ দিন আগে টিকেট কেনা যাবে। দেশে প্রচলিত বিভিন্ন ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ও মোবাইল ব্যাংকিং রকেট (ডাচ-বাংলা) দিয়ে এই সেবা পাওয়া যাচ্ছে। এখনও বিকাশ ওয়ালেট দিয়ে টিকেট কেনার ব্যবস্থা হয়নি।
ট্রেনের টিকেট কিনতে ‘ই-সেবা’ (https://www.esheba.cnsbd.com/) ঠিকানায় গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে ট্রেনের শিডিউল/ভাড়া দেখা থেকে শুরু করে আপনার যাত্রার দিনে টিকেট আছে কিনা তাও জেনে নিতে পারবেন। সেইসঙ্গে নতুন যুক্ত হওয়া সিট প্ল্যান দেখে পছন্দের আসনে টিকেট বুকিং/কেনার সুবিধা।

আরো জানুন:- ঘরে বসে NID কার্ড সংশোধন করুন

অনলাইনে টিকেট কেনার কিছু ধাপ পেরিয়ে আপনি ক্রেডিট কার্ড ও মোবাইল মানির মাধ্যমে টিকেট প্রাপ্তির ই-মেইল পাবেন। যেখানে আপনার টিকেটের বিস্তারিত ও সিক্রেট পাসওয়ার্ড পৌঁছে যাবে।

ভ্রমণের দিনে ট্রেন ছাড়ার ৩০ মিনিট পূর্বে ও আগেই ওই টিকেট সংগ্রহ করা যাবে। আপনি যদি প্রথমবার টিকেট কাটেন, তাহলে অনলাইন Registration করতে হবে

Registration প্রক্রিয়াঃ (শুধুমাত্র একবার করতে হবে)।
১। প্রথমে https://www.esheba.cnsbd.com/ ওয়েব সাইটে প্রবেশ করতে হবে।
২। ওয়েবসাইটে ঢুকে ডান পার্শ্বের উপরের দিকে থাকা Registration এ ক্লিক করতে হবে।
৩। নতুন একটি Page আসবে। এখানে সংশ্লিষ্ট ঘরগুলো প্রয়োজনীয় তথ্যাদি দিয়ে পূরণ করে Sing Up এ ক্লিক করতে হবে। Security code ঘরের ৪। পরের ধাপে আপনার মোবাইলে আসা সিকিউরিটি কোডটা দিয়ে Verify এ ক্লিক করতে হবে।
এ প্রক্রিয়ার পর যাত্রীর Registration প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ণ হবে।


টিকেট ক্রয় প্রক্রিয়াঃ
১। প্রথমে https://www.esheba.cnsbd.com/ ওয়েব সাইটে প্রবেশ করতে হবে।
২। ওয়েবসাইটে ঢুকে ডান পার্শ্বের উপরের দিকে থাকা Login এ ক্লিক করতে হবে।
৩। আপনার ই-মেইল ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করতে হবে।
৪। Update User Profile এ ক্লিক করে আপনার প্রয়োজনীয় সকল তথ্য আপনার NID এর মত করে দিয়ে আপডেট করুন
৫। এরপর Home বাটনে ক্লিক করে মূল পেইজে যাবেন
৬। এখানে যে Pageটি আসবে সে Page এ আপনার চাহিত ভ্রমণ তারিখ, প্রারম্ভিক স্টেশন, গন্তব্য স্টেশন, ট্রেনের নাম, শ্রেনী, টিকেট সংখ্যা যেভাবে রয়েছে তা পূরণ করতে হবে। তারপর Find বাটনে ক্লিক করতে হবে।


৭। তারপর আপনাকে ট্রেনের নাম, যাত্রার সময় ও ভাড়ার পরিমাণসহ দেখাবে সেখান থেকে আপনার পছন্দীয় ট্রেনের নামের কলামের ডান দিকে থাকা Details এ ক্লিক করতে হবে তারপর Purchase এ ক্লিক করতে হবে তারপর Buy Ticket এ ক্লিক করতে হবে
৮। তারপর প্রয়োজনীয় ফি প্রধানের জন্য পেমেন্ট পেইজে নিয়ে যাবে সেখান থেকে বিকাশ, রকেট, nexuspay ক্রেডিট কার্ড, ক্যাশ কার্ড কিংবা ব্রাক ব্যাংকের একাউন্ট মারফত যাত্রির জমাকজৃত টাকা থেকে টিকেট মূল্য কেটে নেয়া হবে এবং যাত্রীর ই-মেইলে ই-টিকেটটি পাটিয়ে টিকেট নিশ্চিত করা হয়ে থাকে। ই-মেইল মেসেজ বক্স থেকে প্রেরিত টিকেটটির প্রিন্ট নিয়ে ফটো আইডিসহ ই-টিকেট প্রদত্ত “Ticket Print Information” প্রদান করে সংশ্লিষ্ট সোর্স ষ্টেশন থেকে যাত্রার পূর্বে ছাপানো টিকেটও সংগ্রহ করতে পারবেন।

তারপরও না বুজে থাকলে নিচের ভিডিওটি দেখতে পারেন

ইউটিউবে আমাদের সাথে সংযুক্ত হতে আমাদের চ্যানেলটি এখনি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন।

New Rules For Railway

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here